আজ-  ,
basic-bank পরিক্ষা মূলক সম্প্রচার...
ADD
সংবাদ শিরোনাম :
«» স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি নির্মল গুহ আর নেই। «» সৈয়দপুর উপজেলা আ’লীগের “স্বপ্নের পদ্মা সেতু” উদ্বোধন ও প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত। «» ভারতে মহানবীর (সা:) অবমাননার প্রতিবাদে উত্তাল সৈয়দপুর, বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ। «» সৈয়দপুরে স্কুল শিক্ষককে ফাঁসাতে গিয়ে বোতলাগাড়ির মিলন এখন জেল হাজতে। «» সৈয়দপুর ফাইলেরিয়া হাসপাতাল পরিচালনায় নতুন কমিটি ঘোষনা। «» সৈয়দপুরে আ’লীগ সভাপতির নেতৃত্বে সাংবাদিক হককে গ্রেফতার ও বহিষ্কারের দাবীতে প্রতিবাদ মিছিল। «» সৈয়দপুরে সাংবাদিক মোতালেব প্রহৃতের ঘটনায় আ’লীগের প্রতিবাদ মিছিল। «» সৈয়দপুরে কামারপুকুর ইউনিয়ন আ’লীগের মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন। «» সৈয়দপুরে আ’লীগের নব-নির্বাচিত কমিটি কতৃক বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পন। «» সৈয়দপুর থানার উপ-পরিদর্শক সাহিদুর রহমান বিশেষ পুরষ্কারে ভূষিত।

ফয়েজ আহমেদ এর রম্য রচনা “তেল হাওয়া”

তেল হাওয়া”

(একটি ছোট রম্য রচনা)

মিলে সরিষা তেল নাই কথাটা শুনে একটা হোচট খায় সজিব। সে ভাবে করোনা প্রর্দুভাবের কারনে মানুষের আয়-রোজগার কমে গেছে। হাট-বাজারে মানুষ কম আসছে। এখনতো সব ধরনের মালামাল অহরহ পাওয়া যাওয়ার কথা। আর উনি কি বলছেন, তার মিলে তেল নাই। তেলের এত চাহিদা। সজিব ভাবে,হয়ত কাচা মাল পাওয়া যাচ্ছে না। তাই হয়ত উৎপাদন অনেকটা কমে গেছে।

সে আবার দোকানদারকে বলেন, ভাই কবে আসলে তেল পাব। এবার দোকানদার যা বলেন,তা শুনে তাজ্জব বনে যান, সজিব। দোকানদার বলেন, ভাই তেল কখন পাবেন, তার গ্যারান্টি দিতে পারব না। তেল উৎপাদন হওয়ার সাথে সাথে বিক্রয় হয়ে যাচ্ছে।

অনেকে আবার অগ্রীম টাকা দিয়ে রেখেছেন। তাদেরই সঠিক ভাবে সরবাহ করতে পারছিনা। আর নতুন করে তেলের অর্ডার নেয়াও বন্ধ করে দিয়েছি। আপনি যোগাযোগ রাখেন। তেল থাকলে,তখন দেয়া যাবে।

সজিব আরো ভাবনায় পড়ে যায়। সে ভাবতে থাকে এই সময়ে এত তেল কোথায় যাচ্ছে। সজিব আরো ৩ টি পাইকারি দোকানে খোজ নিয়েছে। তারাও একই কথা বলেছেন। ভাবনা আরো বেড়ে যায় সজিবের। সে এবার দোকানদারকে জিজ্ঞেস করেন,ভাই হঠাৎ করে আপনাদের এত বিক্রয় বেড়ে গেল কেন। কারা নিচ্ছে, আপনাদের এত তেল।

দোকানদারের জবাব শুনে এবার আরো তাজ্জব বনে যান, সজিব। দোকানদার বলেন,এখন রাজনীতিতে তেলের কদর বেড়ে গেছে। ছাত্র ,যুবক ও মুল দলের নেতা-কর্মিরা এখন মনকা মন তেল কিনে ব্যবহার করছেন। কেউ আবার তেল মজুদ করে রাখছেন হঠাৎ প্রয়োজনের কথা মনে রেখে।

সজিব দোকানদারকে জিজ্ঞেস করেন,ভাই ওনারা তেল দিয়ে কি করেন। রাজনীতি ছেড়ে ওনারা কি তেলের ব্যবসা ধরলেন না কি? এবার বিরক্ত হয় দোকানদার। বলেন ভাই আপনি যান তো। আজে বাজে প্রশ্ন করে, মাথা নষ্ট করিয়েন না তো। রাজনৈতিক নেতা-কর্মিরা করবে তেলের ব্যবসা। বোকা হাদা কোথাকার বলে, সজিব কে দোকান থেকে চলে যেতে বলেন।

সজিব এবার বোকা বনে যান। সে দোকানদারকে অনুযোগের সাথে জিজ্ঞেস করেন,ভাই আমি জানিনা বলে তো জি্জ্ঞেস করছি। দয়া করে বলুন না, ওনারা তেল দিয়ে কি করেন।

এবার দোকানদার আরও বিরক্ত হয়। এমন বোকা লোক সে কখনও দেখেনি। দোকাদার এবার বলেন,যানতো ভাই। তেল দিয়ে কি করে তা তামান্না মোড়ের বদিয়ার চাচাকে গিয়ে জিজ্ঞেস করেন। ওনি আপনাকে বলে দেবেন।

সজিব দোকানদারকে বলেন, ভাই আমি বদিয়ার চাচাকে তো চিনি না। আর কোথায় খুজব বদিয়ার চাচাকে। আমিতো ওনাকে চিনি না। আপনি বলুন না। তেল দিয়ে ওনারা কি করেন।

সজিবের বার বার প্রশ্নে এবার বিরক্ত হয় দোকানদার। এমন বোকা লোক ওই দোকানদার আগে দেখেনি। তাই দোকানদার এবার সজিবকে বলেন,আপনি জানেন নেতারা এত পিচ্ছিল কেন। সজিব বলেন,নাতো ভাই। দোকানদার আবার বলেন, আপনি জানেন নেতাদের খালি হাতে ধরা যায়না কেন। সজিব উত্তর দেন, না জানিনা তো। দোকানদার বলেন, এই সবই তেলের তেলেসমাতি।

নেতাদের শরিরে তেল থাকে। তাই নেতারা পিচ্ছিল হয়,নেতাদের ধরা যায় না। আর অনেকেই এই তেল কিনে নেতাদের উপহার দেন। আবার অনেকেই নেতাদের হাঁতে পাঁয়েসহ পুরো শরিরে ম্যাসেস করে দেন। তাইতো বাজার থেকে তেল হাওয়া।

দোকানদার আরও বলেন,এই তেল না দিলে নেতাদের কাছে প্রিয় হওয়া যায় না। পদ-পদবি জোটে না। যে যত বেশি তেল দেয়, সে তত বেশি প্রিয় হয়, কাছের মানুষ হয়। তেল না দিলে আপনার কোন কাজ-কর্ম হবেনা। সব কাজ আটকে থাকবে, বুঝলেন।

দোকানদার বলেন,আপনি শুনেন নাই,তেল দিলে বেশ,না দিলে আপনি শেষ। শহর ও গ্রামে কি কম নেতা আছে। তাদের কি তেল লাগেনা। তাছাড়া দেখেন নাই,ক’জন নেতা পাতলা। মোটামুটি সবাইতো মোটা।দোকানদার আরও বলেন, শহরের একজন মোটা নেতাকেই তো লাগে, মাসে টনকা টন তেল। আরো তো অনেক নেতা আছে। তাদের কি তেল লাগে না । আর আপনি আসছেন,তেল কিনতে।
যান তো,চলে যান।

দোকানদারের কথা শুনে হতবাক হয়ে যায় সজিব। সে মনে মনে ভাবে,দোকানদার ভাই তো সঠিক কথাই বলেছেন। আজ-কাল তো রাজনীতিতে তেল ছাড়া কোন কাজই হয়না। রাজনীতিতে ঢুকে গেছে তেল।এছাড়া আর্থ-সামাজিক ব্যবস্থায়ও এখন চলছে তেলের তেলেসমাতি। আর তাই তেলের এত কদর। আর এ কারনে অনেকে পাচ্ছেনা তেল। তেলের যে এভাবে কদর বেড়ে যাবে তা বুঝতে পারেনি সজিব। তাই সজিব তেল না পেয়ে, মলিন মন নিয়ে,বাড়িতে ফিরে আসেন। 

Related Posts
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প “দু’ফোটা জল”।
মাথা ভর্ত্তি একরাশ চিন্তা নিয়ে শহরের উদ্দেশ্য রওয়ানা হয় রফিক। বাড়িতে কোন টাকা নেই। বাজার যা আছে দু'এক দিনে শেষ হয়ে যাবে। এদিকে এখন তার পকেটে আছে মাত্র পঞ্চাস টাকা। ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প”ঈদ কালেকশন”।
অফিসে ঢোকার সাথেই সোহাগের হাতে এক'শো জনের নামের তালিকা ধরিয়ে দেন সভাপতি বীর বাহাদুর। বলেন,আগামী বুধবার থেকে কালেকশন শুরু করতে হবে। ঈদের বেশী দেরী নেই। আর বিলম্ব করা যাবেনা। সভাপতি ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প”জীবন নিয়ে জুয়া”।
অনেক আশা করে সরকারী চাকুরীজীবি কনে বিয়ে করেছেন তোফা। মনে তার একটাই শ্বান্তনা,এবার সংসারটা হবে। সরকারী চাকুরীজীবি বউ। অন্তত লোভ থাকবেনা। তছরুপ করবে না টাকা-পয়সা । ভাঙ্গবে না সংসার। কখনও যাবেনা ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট গল্প “ফাঁপরবাজ”।
"ফাঁপরবাজ নেতা"।   ( ফয়েজ আহমেদ এর নির্বাচনী ছোট গল্প)   তামান্না মোড়ে চলছে নির্বাচনী পথ সভা। পথ সভা রুপ নিয়েছে এক প্রকার জনসভায়। চারিদিকে শুধু মানুষ। রংপুর রোডটি জানজটে পরিনত হয়েছে। জানজট নিরসনে ...
READ MORE
“পক্ষ”
"পক্ষ" -ফয়েজ আহমেদ   ঘটনাস্হল খাতামধুপুর,রাজনীতি সৈয়দপুরে এমনভাবে চলতে থাকলে,ক্ষতি সবার হবে, দুইটা পক্ষ দুই দিকে,রাজনীতি করছে জানি স্বচ্ছ রাজনীতি চাই মোরা,নয় অপরাজনীতি।   দড়ি ধরে টানাটানি,করছে দুই প্রভাবশালী সত্য মিথ্যার চলছে লড়াই,জানি সবাই জানি, দোষী কিনা যাছাই করা,নয়তো কারো ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট গল্প “পল্টিবাজ”।
"পল্টিবাজ"।   -- ফয়েজ আহমেদ। জামাল সাহেব সভাপতি প্রার্থী। দলের কাউন্সিল চলছে। সভাপতি পদে আরও পাঁচ জন প্রার্থী আছেন।  সভাপতি ও সম্পাদক নির্বাচিত করার জন্য ১৬৭ জন কাউন্সিলর তালিকা প্রস্তত করা আছে। কেন্দ্রীয় ও ...
READ MORE
ছোট গল্প “নিষ্ঠুর করোনা”
"নিষ্ঠুর করোনা"   ফয়েজ আহমেদ।   দু'চোঁখ দিয়ে নিরবে গড়িয়ে পড়ছে অশ্রু। কিছুতেই থামাতে পারছেন না জোসনা বেগম। তার বুক চিড়ে বোবা কান্না বেড়িয়ে আসছে। ইচ্ছা করছে চিৎকার করে কান্না করতে। তাও পারছেন না। ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ’র কবিতা “কোভিড-১৯”
কোভিড-১৯"   -ফয়েজ আহমেদ   বিশ্ব এখন অচল অসাড় উৎপাদনের চাকা বেকার উন্নয়ন ধারা থমকে আছে কোভিড-১৯ ত্রাস চালাচ্ছে।   চলেনা আর গাড়ী ঘোড়া ব্যবসা-বানিজ্যে দৈনদশা মেশিন গুলো ধোয়া মোছা দোকান-পাটে নাই সওদা।   বিশ্ব বাজার সাটার ডাউন বিমান-জাহায লক ডাউন মৃত্যুর মিছিল যখন তখন বিশ্বে এখন ...
READ MORE
“জাগ্রত স্বপ্ন”
"জাগ্রত স্বপ্ন" -ফয়েজ আহমেদ   তোমার স্মৃতি উকি দেয়, হৃদয় আয়নায় ভোলা যায় না,মনের গহীনে চাপা কষ্ট, যতবার চেষ্টা করি,ভুলব তোমার স্মৃতি জাগ্রত স্বপ্নে,সামনে এসে দাড়াও তুমি।   তোমার স্মৃতিগুলো কষ্ট দেয়,অবিরত সুখ-স্মৃতির দিনগুলো,আজ বেদনাময়, কষ্টের কঠিন আঘাত,জর্জরিত হাহাকার স্মৃতির বেড়াজালে ...
READ MORE
“করোনা প্রস্হান”
"করোনা প্রস্হান" -ফয়েজ আহমেদ করোনা মহামারী,কাদছে বিশ্ব,কাদছে মানবতা ধ্বংশ অর্থনীতি,চলছে মানবতার আহাজারী, আক্রান্ত মানুষ মরছে যত্ত দেশ আর বিদেশে বিপন্ন সমাজ,খাদ্য সংকট,চলছে বিশ্ব জুড়ে।   বৈশ্বিক এমন মহামারী আগেও ছিল জানি এবার সে ধরছে চেপে, তামাম পৃথিবী লাশের মিছিল ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প “দু’ফোটা জল”।
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প”ঈদ কালেকশন”।
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প”জীবন নিয়ে জুয়া”।
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট গল্প “ফাঁপরবাজ”।
“পক্ষ”
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট গল্প “পল্টিবাজ”।
ছোট গল্প “নিষ্ঠুর করোনা”
ফয়েজ আহমেদ’র কবিতা “কোভিড-১৯”
“জাগ্রত স্বপ্ন”
“করোনা প্রস্হান”

Spread the love
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।