আজ-  ,
basic-bank পরিক্ষা মূলক সম্প্রচার...
ADD
সংবাদ শিরোনাম :
«» স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি নির্মল গুহ আর নেই। «» সৈয়দপুর উপজেলা আ’লীগের “স্বপ্নের পদ্মা সেতু” উদ্বোধন ও প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত। «» ভারতে মহানবীর (সা:) অবমাননার প্রতিবাদে উত্তাল সৈয়দপুর, বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ। «» সৈয়দপুরে স্কুল শিক্ষককে ফাঁসাতে গিয়ে বোতলাগাড়ির মিলন এখন জেল হাজতে। «» সৈয়দপুর ফাইলেরিয়া হাসপাতাল পরিচালনায় নতুন কমিটি ঘোষনা। «» সৈয়দপুরে আ’লীগ সভাপতির নেতৃত্বে সাংবাদিক হককে গ্রেফতার ও বহিষ্কারের দাবীতে প্রতিবাদ মিছিল। «» সৈয়দপুরে সাংবাদিক মোতালেব প্রহৃতের ঘটনায় আ’লীগের প্রতিবাদ মিছিল। «» সৈয়দপুরে কামারপুকুর ইউনিয়ন আ’লীগের মহান স্বাধীনতা দিবস উদযাপন। «» সৈয়দপুরে আ’লীগের নব-নির্বাচিত কমিটি কতৃক বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পন। «» সৈয়দপুর থানার উপ-পরিদর্শক সাহিদুর রহমান বিশেষ পুরষ্কারে ভূষিত।

ফয়েজ আহমেদ এর ছোট গল্প “আজব স্বপ্ন”।

“আজব স্বপ্ন”

 

-ফয়েজ আহমেদ।

 

গ্রামের নাম কাজলীয়া। সবুজ ঘেরা সুন্দর একটি গ্রাম। যতদুর চোঁখ যায়,শুধু প্রকৃতিক সবুজ লীলা ভূমি। গ্রমের লোকজন অত্যান্ত শান্তি প্রিয়। তারা সকলে ওই গ্রামে মিলে মিশে বসবাস করেন। কাজলীয়া গ্রামে নেই কোন অশান্তি। সেখানে সব সময় বইছে শান্তির সুবাতাস।অশান্তি,হিংসা-বিদ্রেষ কি জিনিষ তা জানেনা,কাজলীয়া গ্রামবাসী।

 

গ্রামের সব চেয়ে ধনাঢ্য ব্যক্তি আলাউদ্দিন মিয়া। তার রয়েছে অগাধ সহায়-সম্পত্তি। তার পরেও আলাউদ্দিন মিয়া একেবারে সাদা-মাটা সোনার মানুষ। গ্রামের সকল মানুষের নয়ন মনি আলাউদ্দিন মিয়া।তিনি একজন ধর্ম ভিরু মানুষ। পাঁচ ওয়াক্ত নামাযসহ জিগির-বন্দগীতে তার সময় কাটে। মাঝে মধ্যে সময় পেলে তিনি গ্রামের সকল মানুষের খোজ-খবর করতে বের হন। কারো কোন সামান্য অভাব-অভিযোগের কথা জানলেই তিনি সাথে সাথেই তাকে সাহায্য করেন।
আলাউদ্দিন মিয়া গ্রামে একটি মসজিদ,একটি প্রাইমারী ও একটি হাইস্কুল নিজস্ব জমিতে তৈরী করে দিয়েছেন। মসজিদে নামায আদায়সহ স্কুলে গ্রামের ছেলে-মেয়েরা নাম মাত্র মুল্য শিক্ষা গ্রহন করেন। আলাউদ্দিন মিয়া এবার উদ্দ্যেগ নিয়েছেন,তিনি প্রাইমারী ও হাইস্কুলের পাশাপাশি একটি কলেজ তৈরী করবেন। সেখানে প্রাইমারী ও হাইস্কুল পাশ করে গ্রামের শিক্ষার্থীরা উচ্চ শিক্ষা গ্রহন করবেন।
আলাউদ্দিন মিয়া বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন, প্রাইমারী ও হাইস্কুলে কর্মরত শিক্ষকদের সাথে। তারা আলাউদ্দিন মিয়াকে উৎসাহ দেন। বলেন,এটা করতে পারলে অনেক ভাল হবে। গ্রমের শিক্ষার্থীদের আর উচ্চ শিক্ষার জন্য বাইরে যেতে হবেনা। কাজলীয়া গ্রাম আরো আলোকিত হবে।
আলাউদ্দিন মিয়া ভাবেন,তিনি এবার কলেজের পাশাপাশি গ্রামে একটি হসপিটাল নিমর্ন করবেন। ওই হসপিটালে গ্রামের মানুষ নামমাত্র মুল্য স্বাস্থ্য সেবা পাবেন। অসুস্থ্য হলে গ্রামের লোকজনকে আর কষ্ট করে দশ মাইল পাড়ি দিয়ে শহরে যেতে হবেনা। তার হসপিটালটি হবে শত ভাগ অলাভ জনক একটি দাতব্য প্রতিষ্ঠান।
ঠান্ডা জনিত কারনে ঘুমের মধ্যেই  কাশি দিয়ে ওঠেন আলাউদ্দিন। হঠাৎই ঘুমটা ভেঙ্গে যায় তার। জানালা খুলে তাকিয়ে দেখেন, রিকসাটি আছে কিনা। এলাকায় এখন যে চোর-ছেচড়ার উৎপাত শুরু হয়েছে,তাতে শান্তিতে নেই কোন মানুষ। গত তিন দিনে পাঁচ জনের বাড়ীতে চুরি হয়েছে। জসিমের কষ্ট করা হালের বলদ দু’টোও নিয়ে গেছে ওরা। তাই আলাউদ্দিন তার রিকসাটি রাতে পাহারা দিয়ে রাখেন। আজ হঠাৎই তার চোঁখে ঘুম চলে এসেছিল।
কিন্তু ঘুমের মধ্যে এসব কি “আজব স্বপ্ন” দেখল আলাউদ্দিন। আর “কাজলিয়া গ্রামটাই” আবার কোথায়। এমন নাম তো সে আগে শুনেন নাই। আবার ওই গ্রামের সব চাইতে ধনাঢ্য ব্যক্তি সে। এমন “আজব স্বপ্ন” কেন দেখল আলাউদ্দিন। সে তো একজন গরীব মানুষ। সহায়-সম্পতি বলে শুধু এই রিকসা। যা চালিয়ে সে কোন রকমে স্ত্রী আর তিন সন্তান নিয়ে অতি কষ্টে জীবিকা নির্বাহ করেন। টাকার অভাবে ছেলে-মেয়েদের লেখা-পড়া করাতে পারছেন না। অথচ সেই আলাউদ্দিন এলাকায় করেছেন, মসজিদ,,স্কুল-কলেজসহ হসপিটাল।
আলাউদ্দিন এমন “আজব স্বপ্নের” মানে খোজার চেষ্টা করেন। তার মনে হয়, এমন স্বপ্ন দেখবেন এলাকার জোতদার ও সরকাররা। যারা শত শত বিঘা জমি-জিরাত,দালান-কোঠা,গাড়ী-বাড়ী সবই ভোগ করছেন।তার পরেও তারা গ্রামের লোকজনের জন্য কিছুই করেন নাই। এছাড়া এলাকায় চেয়াম্যান,রাজনৈতিক ব্যাক্তিসহ অনেক বিত্ত্ববান ব্যক্তি আছেন। যাদের সমাজের জন্য অনেক কিছু করার আছে।  কিন্তু মাবুদ তাদেরকে এ স্বপ্ন না দেখিয়ে, আমাকে দেখাল কেন? আমি তো এ “স্বপ্নের গ্রাম” বাস্তবায়ন করতে পারবনা।
আলাউদ্দিন মহান আল্লাহ্ রাব্বুল আল-আমিন এর  নিকট ফরিয়াদ করেন,হে আল্লাহ্ তুমি আমাকে সামর্থ দাও,আমি যেন,এমন “কাজলিয়া গ্রাম”বাস্তবায়ন করতে পারি। নইলে তুমি এই স্বপ্ন, জোতদার আর সরকারদের দেখাও। অথবা চেয়ারম্যান,রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব বা বিত্ত্ববানদের দেখাও। যাদের সামর্থ আছে,কিন্তু তা না করে তারা টাকা পাচার করছে ভিনদেশে।আলাউদ্দিন আরো ফরিয়াদ করেন, হে মাবুদ, তাদের দিলে প্রয়োজনে  “কাজলিয়া গ্রাম”বাস্তবায়নের সীল মেরে দাও।
Related Posts
ছোট গল্প “দ্বি-চারিনী”।
"দ্বি-চারিনী"   ফয়েজ আহমেদ।   রাস্তা দিয়ে হেটে যাওয়ার সময় একটি পরিচিত নারী কন্ঠ ভেসে আসে সাকিলের কানে। কন্ঠটা রাস্তার পাশের ওই বাড়ীটা থেকে আসছে। বাড়ীটা সাকিলের পরিচিত। আব্দুল হকের বাড়ী। সাকিলের এক কাছের ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প”অমানবিক মানুষ”।
শ্বাস নিতে পারছেন না আছমা বেগম। খুব কষ্ট হচ্ছে তার। মনে হচ্ছে এক্ষনেই মারা যাবেন। কয়েক দিন থেকেই তার শরীরে জ্বর চলছে।  গতকাল জ্বরটা বেশী ছিল। পাড়ার মোড় থেকে নাপা ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প “ভালবাসি হয়নি বলা”।
"ভালবাসি হয়নি বলা" -ফয়েজ আহমেদ।   জবা তলায় বসে বাদাম খাচ্ছে রিপন।সে একাই বসে আছে।কিছুক্ষন আগে তার সহপাঠীরা চলে গেছে। আজ কলেজে আর কোন ক্লাস নেই। বাদাম খাওয়া শেষে রিপনও চলে যাবে। রিপনের ...
READ MORE
“স্বাধীনতার রুপকার”
"স্বাধীনতার রুপকার" -ফয়েজ আহমেদ।   বাংলাদেশ একদিন স্বাধীন ছিলনা। ছিল পরাধীন। নাম ছিল পুর্ব পাকিস্থান। ইংরেজ শাসনের অবসানের পর ১৯৪৭ সালে ধর্মের ভিত্তিতে দু'টি রাষ্ট্রের জন্ম হয়। একটি ভারত ও অপরটি পাকিস্থান। পাকিস্থান ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প”ধোকা”।
মাস্টার্স পাশ করেও কোন চাকুরী জোগাড় করতে পারেনি তৈমুর। রাত-দিন অনেক দালালের পিছনে ঘুরেছেন। একটা চাকুরীর প্রত্যাশায়। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। মধ্যখানে তার গাটের টাকা গেছে জলে। সর্বশেষ এক ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প “দু’ফোটা জল”।
মাথা ভর্ত্তি একরাশ চিন্তা নিয়ে শহরের উদ্দেশ্য রওয়ানা হয় রফিক। বাড়িতে কোন টাকা নেই। বাজার যা আছে দু'এক দিনে শেষ হয়ে যাবে। এদিকে এখন তার পকেটে আছে মাত্র পঞ্চাস টাকা। ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট গল্প”কদর হুজুরের কান্ড”।
শুধু গ্রামে নয়,আশে পাশের আরো দশ গ্রামে আবিরের নাম প্রচার হয়ে গেছে। দশ গ্রামের লোক আজ আবিরকে আলাদা চোঁখে দেখছেন। তাকে সমীহ করছেন,ভালবেসে আবির ভাই বলে সম্বোধন করছেন। আবির আজ ...
READ MORE
“জাগ্রত স্বপ্ন”
"জাগ্রত স্বপ্ন" -ফয়েজ আহমেদ   তোমার স্মৃতি উকি দেয়, হৃদয় আয়নায় ভোলা যায় না,মনের গহীনে চাপা কষ্ট, যতবার চেষ্টা করি,ভুলব তোমার স্মৃতি জাগ্রত স্বপ্নে,সামনে এসে দাড়াও তুমি।   তোমার স্মৃতিগুলো কষ্ট দেয়,অবিরত সুখ-স্মৃতির দিনগুলো,আজ বেদনাময়, কষ্টের কঠিন আঘাত,জর্জরিত হাহাকার স্মৃতির বেড়াজালে ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট গল্প “দোযখী কাজ”।
তাফসিরুল কোরআন মাহফিলে প্রধান বক্তার ওয়াজ-নসিহত শুনে ফরিদের মনটা খারাপ হয়ে যায়। অনেক আশা নিয়ে দশ কিলো পাড়ি দিয়ে মাহফিলে এসেছিল ফরিদ। কিন্তু এ কেমন বক্তৃতা করলেন হুজুর। ইসলামী জীবন ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ’র ছোট গল্প “রহিমুদ্দিনের কৃতজ্ঞতা”
"রহিমুদ্দিনের কৃতজ্ঞতা"   ( করোনা কালের একটি ছোট গল্প )   -ফয়েজ আহমেদ।   রহিমুদ্দিনের চোঁখ দিয়ে নিরবে পানি ঝড়ছে। একটা বোবা কান্না তার বুক চিড়ে বেরিয়ে আসতে চায়। কিন্তু সে কাদতে পারছেনা। রাত ৩ টা ...
READ MORE
ছোট গল্প “দ্বি-চারিনী”।
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প”অমানবিক মানুষ”।
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প “ভালবাসি হয়নি বলা”।
“স্বাধীনতার রুপকার”
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প”ধোকা”।
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প “দু’ফোটা জল”।
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট গল্প”কদর হুজুরের কান্ড”।
“জাগ্রত স্বপ্ন”
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট গল্প “দোযখী কাজ”।
ফয়েজ আহমেদ’র ছোট গল্প “রহিমুদ্দিনের কৃতজ্ঞতা”
Spread the love
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।