আজ-  ,
basic-bank পরিক্ষা মূলক সম্প্রচার...
ADD
সংবাদ শিরোনাম :

ফয়েজ আহমেদ’র গল্প”ঈদ কালেকশন”।

অফিসে ঢোকার সাথেই সোহাগের হাতে এক’শো জনের নামের তালিকা ধরিয়ে দেন সভাপতি বীর বাহাদুর। বলেন,আগামী বুধবার থেকে কালেকশন শুরু করতে হবে। ঈদের বেশী দেরী নেই। আর বিলম্ব করা যাবেনা। সভাপতি বীর বাহাদুরের এমন নির্দেশনায়, আশ্চর্য হন সোহাগ। বলেন,কিসের কালেকশন। বীর বাহাদুর ভ্রু কুচকে উত্তর দেন,কিসের আবার,ঈদ কালেকশন। আমাদের ঈদ করতে হবেনা। মোটা-মোটি এক’শো জনের কাছে লাক্ষ পাঁচেক টাকা আদায় করতে হবে।

 

সোহাগ বীর বাহাদুরের প্রস্তুত করা তালিকায় চোঁখ বোলান। অনেক জনকে চিনেন সোহাগ।  যারা শহরের প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। আবার অনেকে কালোবাজারী,মুনাফাখোর। আছেন, মাদক ব্যবসায় অভিযুক্ত ব্যক্তিরও নাম। সোহাগ চিন্তায় পড়ে যান। এদের কাছে  আবার কিসের কালেকশন ? তাছাড়া সোহাগের মনে হয়,এরা তো দিবেন ফিতরা ও যাকাতের টাকা। যা গরীব,মিসকিন ও দুস্থ্যদের হক। কিন্তু তারা ওই টাকা নিবেন কেন ? তাছাড়া ফিতরা ও যাকাতের টাকা তাদের নেয়া সমিচিন নয়।
সোহাগ সভাপতি বীর বাহাদুরের প্রস্তাবে দ্বিমত পোষন করেন। বলেন,ভাই ওদের কাছে টাকা নেয়া যাবেনা। ওরা তো দিবেন,ফিতরা ও যাকাতের বরাদ্ধ টাকা। আর ওই টাকায় আমাদের হক নাই। ওই টাকায় গরীব,মিসকিন ও দুস্থ্যদের হক। সোহাগের কথায় ক্ষেপে যান, সভাপতি বীর বাহাদুর। অট্র হাসিতে ফেটে পড়েন,সাধারন সম্পাদক শাহজাদা নবাব। বীর বাহাদুর এবার সোহাগকে ভর্ষনা করেন। বলেন,আমরা ফিতরা আর যাকাত নিব কেন ? আমরা কি, ওই স্ট্যাটাসের লোক নাকি?
সোহাগ তালিকা থেকে চোঁখ সরাতে পারেন না। তার বিবেক কোন ভাবেই সায় দেয়না। মনের সাথে কঠিন যুদ্ধ করেন সোহাগ। সর্বশেষ সভাপতি বীর বাহাদুরকে বলেন, ভাই অসম্ভব। আমি ঈদের নামে কারো কাছে কালেকশন করতে পারব না। কালেকশনের টাকা স্পর্শ করতে পারব না। সোহাগ আরও বলেন, এমন “ঈদ কালেকশনে” আমার আপত্তি আছে। সোহাগের বক্তব্য শুনে অবাক হন বীর বাহাদুর। ফোরামের অন্যান্যরা সোহাগকে নিয়ে তামাশা করেন।
সোহাগ কমিটির সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট। সামাজিক অসঙ্গতি নিরসনে প্রচারণা, প্রতিবাদ ও আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য একটি ফোরাম গড়েছেন তারা। ফোরামে তারা একুশ জন মেম্বার আছেন। সোহাগ ভাবেন,আমরা হতদরিদ্র মানুষের হক আদায় করব। অসঙ্গতি নিরসনে জানাব প্রতিবাদ,চালাব প্রচারণা। আমাদের সকল কার্য্যক্রম হবে জনহিতকর। সেখানে আমরা ঈদ করার জন্য কালেকশন করব চাঁদা।  এটা বেমানান। আমাদের উদ্দেশ্যর পরিপন্থি। এটা করা কোন ভাবেই উচিত হবেনা।
সোহাগ ভাবেন, ফেস ভেলু ও সংগঠনের দৃশ্যমান কার্য্যক্রম দেখে হয়ত অনেকেই কালেকশন দেবেন। এটা ঠিক। সেক্ষেত্রে ফিতরা ও যাকাতের বরাদ্ধ তারা কমিয়ে দিবেন। যা শরীয়তেরও পরিপন্থী। সোহাগ ফোরামের নেতাদের এমন মনোভাব মেনে নিতে পারেন না। তাছাড়া নিজের ও পরিবারের ঈদ খরচ অন্যর কাছে নিতে হবে কেন ? কেন করতে হবে  কালেকশন ? এটাতো এক ধরনের চাঁদাবাজী। সোহাগ কোন চাঁদাবাজী করবেন না। অন্যকেও চাঁদাবাজী করতে সমর্থন করবেন না।
সোহাগের ভাবনা আর শেষ হয়না। সে ভাবেন,অসঙ্গতি নিরসনে কাজ করার অঙ্গিকার নিয়ে, তারা নিজেরাই অসঙ্গতিকে উসকে দিচ্ছেন। সোহাগ জানেন,সমাজের আনাচে-কানাচে এমন কালেকশনের রীতি বেড়ে গেছে। যা অন্যায় ও অপরাধ। এরকম অন্যায়,অপরাধ তারা রুখবেন। চালাবেন সচেতনামুলক কার্য্যক্রম। এমন শপথে বলিয়ান তারা। কিন্তু আজ নিজেরাই জড়িয়ে পড়ছেন,এমন অপরাধে। তাদের মানবিক মুল্যবোধ তাহলে কোথায়?
সোহাগ ভাবেন,সামাজিক রীতি-নীতি আজ কোথায় গিয়ে দাড়িয়েছে। ঈদ বা অন্যান্য ধর্মীয় অনুষ্ঠান এলে,গরীব, মিসকিন ,দুস্থরা বিত্তবানদের ঘরে ঘরে যান। আদায় করেন, ফিতরা,যাকাত। এটাই নিয়ম। আর বর্তমানে স্বচ্ছল অনেক মানুষ ওই ফিতরা,যাকাত পকেটস্থ করছেন ঈদ কালেকশন নামে। ওরা আবার নিজেদের এলিট শ্রেণী বলে দাবী করেন। গরীব,মিসকিন,দুস্থদের ফিতরা, যাকাত ওই এলিটরা ভোগ করেন “ঈদ কালেকশন”নামে।
সোহাগের মনে হয়,এলিটরা এরুপ কালেকশনকে বৈধ রুপ দিতে গড়ে তুলেছেন বিভিন্ন নামের সংগঠন। আর ঈদ এলেই তারা শুরু করেন কথিত কালেকশন আদায়। সোহাগের মনে হয়, এই এলিটরাই সত্যিকার অর্থে আসল মিসকিন ও দুস্থ্য। এদের সম্পদের কোন কমতি নেই। কিন্তু এরা মানষিকতায় মিসকিন, অরিজিনাল দুস্থ্য এরা ।
সোহাগ সভাপতি বীর বাহাদুর ও সম্পাদক শাহজাদা নবাবের এমন অনৈতিক কাজের প্রতিবাদ জ্ঞাপন করেন। সবাইকে এধরনের কাজ হতে বিরত থাকার অনুরোধ জানান। স্বচ্ছল মুসলমান হিসেবে “ঈদ কালেকশন”নামে ফিতরা ও যাকাতের অর্থ  ভোগ না করার পরামর্শ দেন । পরে বিষন্ন মন নিয়ে অফিস থেকে বেরিয়ে আসেন সোহাগ।
Related Posts
ছোট গল্প “মেয়েটাকে ভাল রেখ”
"মেয়টাকে ভাল রেখ"   -ফয়েজ আহমেদ।   রাত দু'টো বাজে। হাইওয়ে ডিউটি চলছে। হঠাৎ ফোনটা বেজে ওঠল। এত রাতে কে ফোন করছে। আরিফ পকেট থেকে ফোনটা বের করে। বাড়ী থেকে ফোন। স্ত্রী মাজেদা করেছে।এত রাতে ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ এর গল্প”সেকেন্দারের আনন্দ অশ্রু”।
গেল এক সপ্তাহ রিকসা নিয়ে বাইরে যেতে পারেননি সেকেন্দার।দেশে চলছে সরকার ঘোষিত লকডাউন। মহামারি করোনা ভাইরাস সংক্রমন ঠেকাতে সরকার এ লকডাউন দিয়েছেন। এদিকে ঘরে জমানো টাকা যা ছিল ফুরিয়ে গেছে। ঘরে ...
READ MORE
“করোনা ভাইরাস”
"করোনা" -ফয়েজ আহমেদ   করোনা,তুমিতো ভালা না দুরত্ব এনেছ সমাজ পরিবারে মায়ের সন্তান নিয়েছ কেড়ে স্ত্রী করেছ পর স্বামীর কাছে পিতাও অসহায় তোমার দ্বায়ে।   করোনা,তুমিতো ভালা না বিশ্ব কাবু,এও তোমার যাদু বিশ্ব অর্থনীতি ভেঙ্গেছ তুমি বিশ্ব নেতাদের করেছ কাবু তুমি কি যাবে ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ’র কবিতা “রোজা”
"রোজা" -ফয়েজ আহমেদ   নীল আকাশে উঠল ভেসে মহাখুশির চাঁদ,মুমিন সকল খাসদিলে,করবে রোজা কাল।   খাবে সেহরী,রাখবে রোজা এইতো সবার,মনের আশা পুর্ন হবে,সকল অভিলাশ।   নীল আকাশের,সোনালী চাঁদ সবার মাঝে,আনন্দ-উচ্ছ্বাস এলো খুশির,মাহে রমজান।   নীল আকাশের,বাঁকা চাঁদে সকল মুমিন,স্বপ্ন খোজে মাবুদ দিবে,এবার নিস্তার।   মাস ব্যাপি,রাখবে রোজা পড়বে নামায,করবে দোয়া সকল ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প”অমানবিক মানুষ”।
শ্বাস নিতে পারছেন না আছমা বেগম। খুব কষ্ট হচ্ছে তার। মনে হচ্ছে এক্ষনেই মারা যাবেন। কয়েক দিন থেকেই তার শরীরে জ্বর চলছে।  গতকাল জ্বরটা বেশী ছিল। পাড়ার মোড় থেকে নাপা ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট গল্প “আজব স্বপ্ন”।
"আজব স্বপ্ন"   -ফয়েজ আহমেদ।   গ্রামের নাম কাজলীয়া। সবুজ ঘেরা সুন্দর একটি গ্রাম। যতদুর চোঁখ যায়,শুধু প্রকৃতিক সবুজ লীলা ভূমি। গ্রমের লোকজন অত্যান্ত শান্তি প্রিয়। তারা সকলে ওই গ্রামে মিলে মিশে বসবাস করেন। ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ’র ছোট একটি প্রেমের গল্প “রাজ যোটক”
"রাজ যোটক"                          -ফয়েজ আহমেদ।                (ছোট একটি প্রেমের গল্প) বিকালের ফ্লাইটে সৈয়দপুর আসছে পল্লবী। খবরটা শুনে ...
READ MORE
“পুর্বসুরী”
পুর্বসুরী"   ফয়েজ আহমেদ   পলাশীর প্রান্তর,একটি যুদ্ধ যুদ্ধ নয়,এক প্রহসন,চাতুরতা, মীর জাফরের প্রতারনা,লোভ দুশো বছর,পরাধীনতার গ্লানী।   ক্লাইভ চাল,বেঈমানী,স্বার্থপরতা নবাব সিরাজ,বাংলার স্বর্কীয়তা, স্বাধীনতার রক্তিম সুর্য, অস্তমিত স্বার্থক মীর জাফর, অভিপ্রায়।   যুদ্ধ হয়নি, খন্ড নাটক মঞ্চায়ন মোহন লাল,ঊর্মি চাদ কুপোকাত, সম্ভব হয়নি,বেঈমান সেনাপতি প্রতারনা,বাংলা শাসন হারায়।   পলাশী ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট “গল্প রেবেকার অজ্ঞামী”।
মায়ের শরীরটা ভাল নেই। অনেক ডাক্তার দেখানে হয়েছে। কিছুতেই সেরে উঠছেনা মায়ের শরীর। মায়ের শরীরের চিন্তায় ভাল নেই জিলানীর মন। সব সময় মায়ের সেরে ওঠা নিয়ে চিন্তায় মগ্ন থাকে জিলানী। ...
READ MORE
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট গল্প”কদর হুজুরের কান্ড”।
শুধু গ্রামে নয়,আশে পাশের আরো দশ গ্রামে আবিরের নাম প্রচার হয়ে গেছে। দশ গ্রামের লোক আজ আবিরকে আলাদা চোঁখে দেখছেন। তাকে সমীহ করছেন,ভালবেসে আবির ভাই বলে সম্বোধন করছেন। আবির আজ ...
READ MORE
ছোট গল্প “মেয়েটাকে ভাল রেখ”
ফয়েজ আহমেদ এর গল্প”সেকেন্দারের আনন্দ অশ্রু”।
“করোনা ভাইরাস”
ফয়েজ আহমেদ’র কবিতা “রোজা”
ফয়েজ আহমেদ’র গল্প”অমানবিক মানুষ”।
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট গল্প “আজব স্বপ্ন”।
ফয়েজ আহমেদ’র ছোট একটি প্রেমের গল্প “রাজ যোটক”
“পুর্বসুরী”
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট “গল্প রেবেকার অজ্ঞামী”।
ফয়েজ আহমেদ এর ছোট গল্প”কদর হুজুরের কান্ড”।
Spread the love
শর্টলিংকঃ
সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না। পাঠকের মতামতের জন্য কৃর্তপক্ষ দায়ী নয়। লেখাটির দায় সম্পূর্ন লেখকের।